(Tin Certificate) অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করার নিয়ম

টিন সার্টিফিকেট তৈরি করার নিয়ম-আসসালামু আলাইকুম আশা করছি সকলে ভালো আছেন, বর্তমানে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় টিন সার্টিফিকেট।বর্তমানে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি নাগরিকের জন্য টিন সার্টিফিকেট প্রয়োজন আর টিন সার্টিফিকেট সম্পর্কে আমরা না জানার ফলে আমরা অনেকেই বিভ্রান্ত কর অবস্থায় পড়ি এবং টিন সার্টিফিকেট কেন প্রয়োজন সে বিষয়গুলো না জেনে আমরা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন অনলাইন সাইবার দোকানগুলো থেকে টাকা দিয়ে সার্টিফিকেটটি গ্রহণ করি।কিন্তু আপনি চাইলে হাতে থাকা স্মার্ট মোবাইল ফোন অথবা কম্পিউটারের মাধ্যমে অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করতে পারবেন।

আজকের পোস্টে আপনাদেরকে যে সকল বিষয় দেখাবো বা জানাবো,টিন সার্টিফিকেট কি (what is tin certificate), টিন সার্টিফিকেট তৈরি কিভাবে অনলাইনে মাধ্যমে করতে হয় এবং অনলাইন থেকে টিন সার্টিফিকেট কিভাবে ডাউনলোড করবেন। এছাড়াও জানতে পারবেন,টিন সার্টিফিকেট লগইন করার নিয়ম, টিন সার্টিফিকেট নতুন নিয়মে আবেদন করার নিয়ম এবং টিন  সার্টিফিকেট ফরম সম্পর্কে এ টু জেড বিস্তারিত।

টিন সার্টিফিকেট কি?

TIN বা টিন সার্টিফিকেট পূর্ণনাম হলো- ট্যাক্স পেয়ার আইডেন্টিফিকেশন নাম্বার। (Taxpayer identification number) ।বর্তমানে প্রত্যেকটি নাগরিকদের যেমন ডিজিটাল জন্ম সনদ এবং ডিজিটাল ভোটার আইডি কার্ডের প্রয়োজন হচ্ছে  ঠিক তেমনি টিন সার্টিফিকেটের ও এখন প্রয়োজন পড়ছে।

এই টিন আইডেন্টিফিকেশন নাম্বার দিয়ে বর্তমানে করদাতাদেরকে আইডেন্টিফাই করছে বাংলাদেশ সরকার করদাতাদের আয়কর রিটার্ন সহজে অনলাইনের মাধ্যমে জমা দেওয়ার জন্য চালু করেছে এই সিস্টেম ।জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এই অনলাইন সিস্টেমে কর রিটার্ন এবং টিন সার্টিফিকেট সম্পর্কিত সকল আবেদনের সিস্টেম চালু করেছে।

কয়েকটি সহজ অনলাইন ধাপের মাধ্যমে আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে ১২ সংখ্যার এই টিন সার্টিফিকেট সংগ্রহ করতে পারবেন।

আপনাদের মধ্যে যারা আগে টিন সার্টিফিকেট করেছেন বা টিন  নাম্বার ১২ সংখ্যা কম তাদেরকে আবার নতুন করে  আবেদন করতে হবে। অর্থাৎ তারা রি-রেজিস্টেশন অপশনের মাধ্যমে  নতুন করে আবেদন করে এই টিন সার্টিফিকেট সংগ্রহ করবে।

কোন কোন কাজে টিন সার্টিফিকেট দরকার হয়?

বর্তমানে বাংলাদেশ সরকার ঘোষিত সকল কাজের জন্য টিন সার্টিফিকেট প্রয়োজন হচ্ছে তার একটা লিস্ট আমি নিচে দিয়ে দিচ্ছি।

  • সিটি কর্পোরেশনের ভিতরে কোন জমি বা বাড়ি বা ভবন কিনতে হলে আপনাকে অবশ্যই টিন সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে।
  • বর্তমানে যেকোনো ধরনের ব্যাংকে লোন এর আবেদন করতে চাইলে আপনাকে টিন সার্টিফিকেট অথবা ট্যাক্স  সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে।
  • যেকোনো ব্যাংক থেকে আপনি ক্রেডিট কার্ড নিতে হলে আপনাকে টিন সার্টিফিকেট দিতে হবে।
  • নিজের কোম্পানি নিবন্ধিত করতে চাইলে আপনাকে টিন সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে।
  • যে কোন কোম্পানির শেয়ার কেনার জন্য টিন সার্টিফিকেট দরকার হয়।
  • বর্তমানে রাইড শেয়ারিং কোম্পানিতে গাড়ি দিতে হলেও আপনাকে টিন সার্টিফিকেট প্রদান করতে হবে।
  • ব্যবসায়ের জন্য ট্রেড লাইসেন্স করতে টিন সার্টিফিকেট দরকার।
  • যেকোনো ধরনের আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই টিন সার্টিফিকেট দরকার হবে।

আরো অনেক কারণে বর্তমানে টিন সার্টিফিকেট দরকার হচ্ছে।

 (Tin certificate) টিন সার্টিফিকেট করতে কি কি লাগে?

  • কম্পিউটার অথবা মোবাইল ডিভাইস ইন্টারনেট সংযোগসহ।
  • আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয় পত্র।
  • আবেদনকারীর সচল একটি মোবাইল নাম্বার
  • আবেদনকারীর পিতা-মাতার নাম।
  • আবেদনকারীর স্থায়ী এবং বর্তমান ঠিকানা।

উপরের এই সকল বিষয় থাকলেই একজন আবেদনকারী টিন সার্টিফিকেট অনলাইন এর মাধ্যমে তৈরি করতে পারবে।

অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট আবেদন করার নিয়ম | TIN certificate তৈরি করার নিয়ম

এখন আমি আপনাদেরকে একদম লাইভ আকারে দেখাবো যে কিভাবে আপনারা ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে  আপনার অথবা আপনার পরিবারের যে কারণ Tin Certificate তৈরি করবেন এক নিমিষেই।

তো চলুন উপরের সকল বিষয় মাথায় রেখে শুরু করা যাক।

ধাপ-০১

  • প্রথমে আপনি আপনার কম্পিউটার অথবা মোবাইল ডিভাইস থেকে আয়কর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন।এরপর আপনার সামনে নিচের ছবির মত এরকম ওয়েবসাইটের হোমপেজ চলে আসবে।

অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করার নিয়ম

ধাপ-০২

  • এরপরে আপনি উপরের মেনুগুলো থেকে রেজিস্টার্ড (Register) বলে একটি মেনু আপনি দেখতে পাবেন। সেই মেনুর উপরে জাস্ট ক্লিক করে রেজিস্ট্রেশন ফরমটি ওপেন করুন।

১.User Id- এখানে আপনি ৮ সংখ্যার একটি ইউজার আইডি দিয়ে দিন।

২.Password – আপনার পছন্দের একটি পাসওয়ার্ড এখানে ব্যবহার করুন।

৩.Retype Password- উপরে আপনি যে পাসওয়ার্ডটি ব্যবহার করেছেন সেই পাসওয়ার্ডটি সম্পূর্ণভাবে কপি করে এখানে পেস্ট করুন।

৪.Security Question -এখান থেকে আপনি এমন একটি প্রশ্নকে বাছাই করুন যেই প্রশ্নর এন্সার আপনার জানা আছে।

৫.security answer – এখানে আপনি উপরে যে প্রশ্নকে বাছাই করেছেন সেই প্রশ্নের উত্তর দিন ।

৬.Country – এখান থেকে আপনি যে কান্ট্রিতে বাস করেন সে কান্ট্রি আপনি সিলেট করে দিবেন।

৭.Mobile -এখানে আপনি আপনার সচল একটি মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করবেন।

৮.Email address – এখানে আপনি আপনার যেকোনো একটি ইমেইল এড্রেস ব্যবহার করবেন।

৯.verification letters- উপরে কিছু ক্যাপচা দেওয়া থাকবে সেই ক্যাপচার সংখ্যা গুলো আপনি এই বক্সে বসিয়ে দিবেন।

অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করার নিয়ম

ধাপ-০৩

  • এ ধাপে আপনাকে যে কাজটি করতে হবে নিচে থাকা আপনি রেজিস্টার (Register) বলে একটা অপশন দেখতে পাবেন সেই অপশনটির উপরে জাস্ট ক্লিক করবেন।
  • এখানে আপনার একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন হয়ে যাবে। আপনি যে ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেছেন। সেই ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ডটি অবশ্যই মনে রাখবেন।

ধাপ-০৪

  • রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট হয়ে গেলে আপনি উপরের মেনুগুলো থেকে” লগইন “এই অপশনটির উপরে ক্লিক করে দিবেন। এরপর আপনার সামনে ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড অর্থাৎ লগইন করা প্রোফাইল চলে আসবে।

গুগল নিউজে সবার আইটি বিডি সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন

  • এখানে আপনি আপনার ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে নিচে থাকা লগইন অপশন এর উপর ক্লিক  করে দিবেন। সঙ্গে সঙ্গে আপনার সামনে আপনার একাউন্টটি ওপেন হয়ে যাবে।অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করার নিয়ম

ধাপ-০৫

  • আপনার প্রোফাইলটি ওপেন হয়ে গেলে। বাম পাশে থাকা অনেক মেনু আপনি দেখতে পাবেন।প্রয়োজনে ছবির সঙ্গে একটু মিলিয়ে নিবেন।
  • সেই মেনুগুলো থেকে“TIN Application“বলে একটা অপশন আপনি দেখতে পাবেন এই অপশনের উপরে ক্লিক করুন।

অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করার নিয়ম

  • এখন আপনার সামনে টিন আবেদন করার জন্য আপনার ভোটার আইডি কার্ড দেখে আপনার নাম, বর্তমান ঠিকানা, বাবা-মার নাম এই সকল বিষয় গুলো পূরণ করুন।

ধাপ-০৬

  • উপরের ধাপের সকল ইনফরমেশন ঠিকঠাক দেওয়া হয়ে গেলে।হাতের বামে থাকা মেনুগুলোর মধ্যে আপনি দেখতে পাবেন “View Tin Certificate”এখানে ক্লিক করলে আপনি  আপনার সম্পূর্ণ টিন সার্টিফিকেটটি দেখতে পাবেন। এবং নিচে থাকা অপশনগুলো থেকে আপনি ডাউনলোড বা প্রিন্ট করতে পারবেন।

উপরের এই সকল ধাপ অনুসরণ করে খুব সহজে আপনি ঘরে বসে আপনার টিন সার্টিফিকেটটি অনলাইনের মাধ্যমে কমপ্লিট করতে পারবেন।

অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট তৈরি করার নিয়ম

টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড

অনেক সময় আমরা চিন্তা করি যে অনলাইন থেকে যদি আমাদের টিন সার্টিফিকেটটি ডাউনলোড করা যায় তো তাহলে কতই না ভালো হতো ?হ্যাঁ বর্তমানে আপনি চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে আপনার টিন সার্টিফিকেটটি ডাউনলোড করতে পারবেন।

টিন সার্টিফিকেট ডাউনলোড করার জন্য প্রথমে আপনাকে আয়কর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে এখানে একাউন্ট ক্রিয়েট করে আপনার টিন আবেদন করে সেখান থেকে টিন সার্টিফিকেটটি ডাউনলোড করে ফেলতে পারবেন।

আশা করছি আপনারা খুব সহজেই এখান থেকে টিন সার্টিফিকেটটি আপনারা ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

টিন সার্টিফিকেট আবেদন

আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছে যারা টিন সার্টিফিকেট কিভাবে আবেদন করতে হয় অনলাইনের মাধ্যমে এ বিষয়টি  না জানার ফলে গুগল এবং বিভিন্ন মাধ্যমে তারা খুঁজে থাকে।

  • টিন সার্টিফিকেট আবেদন অনলাইনে করার জন্য প্রথমে আপনাকে আয়কর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।
  • এরপর আপনি রেজিস্ট্রেশন অপশন থেকে আপনি সম্পূর্ণভাবে এখানে এই ওয়েবসাইটে একটি একাউন্ট তৈরি করে নিবেন।
  • এরপরে আপনি রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট হয়ে গেলে আপনার ইউজার আইডি পাসওয়ার্ড দিয়ে আপনার প্রোফাইলে প্রবেশ করবেন।
  • আপনার প্রোফাইলে যাওয়ার পর টিন অ্যাপ্লিকেশন বলে একটি অপশন দেখতে পাবেন সেখান থেকে আপনি টিন সার্টিফিকেট জন্য আবেদন করবেন।

আশা করছি এই নিয়মে যদি আপনার টিন সার্টিফিকেট আবেদন করেন তাহলে খুব সহজে আপনার টিন সার্টিফিকেট কমপ্লিট হয়ে যাবে।

টিন সার্টিফিকেট ফরম

আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছে যারা তিন সার্টিফিকেট কমপ্লিট করার জন্য অনলাইনে টিন সার্টিফিকেট ফরম ডাউনলোড বিষয়ে সার্চ করে থাকে।

আপনার চাইলে টিন সার্টিফিকেট ফরম খুব সহজেই আপনারা ডাউনলোড করতে পারবেন টিনের জন্য আবেদন ফরম এখানে থেকে ডাউনলোড করুন।

টিন সার্টিফিকেট সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন উত্তর

টিন সার্টিফিকেট করতে কত টাকা লাগে?

টিন সার্টিফিকেট কমপ্লিট করতে কোন ধরনের টাকার প্রয়োজন হয় না। অনলাইন থেকে নিজেই তৈরি করা যায়।

টিন থাকলে ট্যাক্স দিতে হবে কি?

টিন সার্টিফিকেট থাকলে ট্যাক্স দিতে হবে বিষয়টা এমন না তবে ট্যাক্স রিটার্ন অবশ্যই আপনাকে জমা দিতে হবে।

একজন ব্যক্তি একাধিক টিন সার্টিফিকেট তৈরি করতে পারবে কিনা?

না একজন ব্যক্তি একাধিক তিন নাম্বার দিতে পারবে না। কারণ একজন ব্যক্তির একটি এনআইডি কার্ড এর বিপরীতে একটি টিন নাম্বার দেওয়া হয়।

শেষ কথা –

আশা করছি আপনারা যারা টিন সার্টিফিকেট অনলাইন এর মাধ্যমে তৈরি করতে চেয়েছিলেন?  তারা উপরের দেখানোই নিয়ম অনুসরণ করে খুব সহজে  টিন সার্টিফিকেট তৈরি করতে পারবেন। এছাড়াও আমি আপনাদের কে নিচে ভিডিও শেয়ার করছি আপনার চাইলে সে ভিডিও দেখেও টিন সার্টিফিকেট  তৈরি করে ফেলতে পারবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য – সম্পূর্ণ ইনফরমেশন গুলো অনলাইন থেকে সংগৃহীত।

👉🙏লেখার মধ্যে ভাষা জনিত কোন ভুল ত্রুটি হয়ে থাকলে অবশ্যই ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

✅আজ এ পর্যন্তই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন 🤔

আপনার জন্য-

মোবাইল দিয়ে টিন সার্টিফিকেট তৈরি

আমাদের আরো সেবা সমূহ :-

↘️আমার ভিডিওগুলো পাবেন যে সকল মাধ্যমে 👇

➡️YouTube চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️Facebook পেজ ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️Instagram চ্যানেল ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️WhatsApp চ্যানেল ফলো করে রাখুন – এখানে ক্লিক করুন

➡️Telegram গ্রুপ ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️Treads চ্যানেল ফলো করে রাখুন –এখানে ক্লিক করুন

➡️TikTok চ্যানেল ফলো করে রাখুন-এখানে ক্লিক করুন

Leave a Comment