মোবাইল দিয়ে টিন সার্টিফিকেট তৈরি | TIN Certificate Make

আসসালামু আলাইকুম আশা করছি সকলে ভালো আছেন, বর্তমানে টিন সার্টিফিকেটটি কিন্তু প্রত্যেকটি বাংলাদেশ নাগরিকের জন্য এখন দরকার হয়ে পড়েছে। বর্তমানে আপনি বাংলাদেশের একজন নাগরিক হয়ে থাকলে অবশ্যই আপনার টিন সার্টিফিকেট কোথাও না কোথাও প্রয়োজন পড়বে। আর আপনি যদি টিন সার্টিফিকেট তৈরি করতে নিজে
থেকে না পারেন, তাহলে আপনি বাজার থেকে সার্ভিস নিতে গেলে কিন্তু বাড়তি টাকা আপনাকে প্রদান করতে হবে।

এজন্য বর্তমানে যেহেতু প্রত্যেকটি পরিবারে মিনিমাম একটি করে স্মার্ট মোবাইল ফোন আমাদের রয়েছে। আপনি চাইলে এই স্মার্ট মোবাইল ফোনের ডাটা সংযোগ করেই আপনি এবং আপনার পরিবারের প্রত্যেকটি সদস্যের টিন সার্টিফিকেট নিজেই তৈরি করে নিজেই ডাউনলোড করতে পারবেন আপনার মোবাইল গ্যালারিতে।

তো যাই হোক মোটকথা আমরা স্মার্ট মোবাইল ফোন বাজে কোন মোবাইল ফোন দিয়ে অনলাইনের ইন্টারনেট সংযোগ করে কিভাবে আমরা ঘরে বসেই আমার বা আমার পরিবারের টিন সার্টিফিকেট তৈরি করবো সে বিষয়ে আমরা বিস্তারিত জানবো ইনশাল্লাহ।

টিন সার্টিফিকেট কি | what is tin certificate?

টিন বা TIN এর পূর্ণ অর্থ হলো – T- ট্যাক্স পেয়ার। I- আইডেন্টিফিকেশন। N- নাম্বার। এটি বিশেষ একটা নাম্বার যার মাধ্যমে বাংলাদেশের কর দাতাদেরকে সনাক্ত করা হয়।

অর্থাৎ বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে বা করদাতা হিসাবে এই টিন সার্টিফিকেটটি ভোটার আইডি কার্ড সার্টিফিকেটের মতোই প্রয়োজন পড়বে। এছাড়াও অনেক ক্ষেত্রেই এই টিন সার্টিফিকেটটি বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে আপনার প্রয়োজন পড়বে বা পড়ে থাকে।

👉গুগল নিউজে সবার আইটি বিডি সাইট ফলো করতে এখানে ক্লিক করুন তারপর ফলো করুন

আর আপনিও খুব সহজেই এই টিন সার্টিফিকেটটি অনলাইনের মাধ্যমে আপনার এবং আপনার পরিবারের সদস্যদের তৈরি করতে পারবেন। বার সংখ্যার 18 নাম্বারটি আপনার টিন সার্টিফিকেটের সুন্দর ভাবে লিখা থাকবে। তাই আজকে আপনাদেরকে স্টেপ বাই স্টেপ একদম বাংলা ভাষায় স্ক্রিনশট সহ ছবি সহ এ টু জেড আপনাদেরকে দেখিয়ে দিব।

এবং আমি চ্যালেঞ্জ করছি যে কেউ যদি মোবাইল ফোন শুধু টিপতে শেখে বা জানে। সে অবশ্যই তার মোবাইল ফোন দিয়ে আজকের দেখানোর নিয়ম অনুসরণ করলে টিন সার্টিফিকেটটি সে তৈরি করে ফেলতে পারবে নিজের স্মার্ট মোবাইল ফোনেই।

কি কি কাজে বর্তমানে টিন সার্টিফিকেট প্রয়োজন হয়?

  • ·
    এক বছরে আপনার উপার্জন যদি আয়কর সীমার উপরে হয় তবে আপনাকে ইনকাম ট্যাক্স দিতে অবশ্যই আপনাকে টিন সার্টিফিকেট ব্যবহার করতে হবে।
  • ·
    ব্যবসায়িক ট্রেড লাইসেন্স করার ক্ষেত্রেও আপনাকে টিন সার্টিফিকেট করতে হবে।
  • ·
    কোন ব্যবসায়িক সমিতি বা ব্যবসায়ীদের কোন নিবন্ধনকৃত সংগঠনের সদস্য হতে হলে আপনাকে টিন সার্টিফিকেট প্রয়োজন হবে।
  • ·
    বর্তমানে কোন কোম্পানির যদি আপনি শেয়ার কিনতে চান সে ক্ষেত্রে আপনার টিন সার্টিফিকেট প্রয়োজন হবে।
  • ·
    এছাড়াও রাইট শেয়ারিং কোম্পানিতে গাড়ি দিতে হলে আপনাকে টিন সার্টিফিকেট প্রদান করতে হবে।
  • ·
    নিজের কোম্পানি নিবন্ধন করতে আপনাকে টিন সার্টিফিকেট প্রয়োজন হবে।
  • ·
    ব্যাংক থেকে আপনি লোন আবেদন করতে হলে আপনাকে টিন সার্টিফিকেট প্রদান করতে হবে।
  • ·
    ব্যাংক থেকে আপনি ক্রেডিট কার্ড উত্তোলন করতে চাইলেও আপনাকে এই টিন সার্টিফিকেট ব্যবহার বা প্রয়োজন হবে।
  • ·
    এমনকি সিটি কর্পোরেশনের ভিতরে কোন জমি ভুবন বা ফ্লাট রেজিস্ট্রেশন করার ক্ষেত্রেও আপনাকে টিন সার্টিফিকেট দিতে হবে।

এছাড়াও আরও অসংখ্য কারণে বর্তমানে এই টিন সার্টিফিকেট প্রয়োজন পড়ে।

টিন সার্টিফিকেট তৈরি করতে যা যা লাগে

  • টিন সার্টিফিকেট তৈরি করার জন্য আপনার যে সকল ডকুমেন্টস প্রয়োজন হবে নিচে দিয়ে দিচ্ছি –
  • ·
    টিন সার্টিফিকেট আবেদনকারী জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড।
  • ·
    আবেদনকারীর একটিভ মোবাইল নাম্বার যে মোবাইল নাম্বারে ওটিপি ভেরিফাই করা যাবে।
  • ·
    আবেদনকারী পিতা ও মাতার নাম।
  • ·
    আবেদনকারীর স্থায়ী এবং বর্তমান ঠিকানা।
  • ·
    কোম্পানির ক্ষেত্রে আর জে এস সি নিবন্ধন নাম্বার।

উপরের এই সকল ডকুমেন্টস রেডি করে। আপনি টিন সার্টিফিকেট তৈরি করা শুরু করবেন অনলাইন থেকে।

টিন সার্টিফিকেট তৈরি করার সঠিক নিয়ম |How to apply for TIN Certificate in Bangladesh?

শুরুতে আপনাদেরকে বলেছি যে মোবাইল ফোন দিয়ে আমি আপনাদেরকে একদম দেখাবো যে কিভাবে আপনারা টিন সার্টিফিকেট তৈরি করবেন।

প্রথমে আপনি আপনার মোবাইল ফোন অথবা কম্পিউটার ডিভাইসে আয়কর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন।

এরপরে আপনার সামনে ছবিতে দেওয়া এরকম ওয়েবসাইট চলে আসবে। এখানে প্রথমে আপনার একটি একাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে।অর্থাৎ এই ওয়েবসাইটে আপনাকে রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে।

মোবাইল দিয়ে টিন সার্টিফিকেট তৈরি

 

এরপরে প্রথমেই রেজিস্ট্রেশন (Register) এই অপশনটির উপরে ক্লিক করে দিলে রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট করার একটি ফর্ম আপনার সামনে চলে আসবে।এখান থেকে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় তথ্যগুলি দিয়ে এই রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট করে নিবেন।

 

মোবাইল দিয়ে টিন সার্টিফিকেট তৈরি

 

রেজিস্ট্রেশন কমপ্লিট হয়ে গেলে আপনি যে ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেছেন। login অপশনে গিয়ে সেম ইউজার আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইনকরেনিন।

মোবাইল দিয়ে টিন সার্টিফিকেট তৈরি

এরপরে আপনার প্রোফাইলটি লগইন হয়ে গেলে। মেনুতে আসলে প্রথমে আপনি দেখতে পাবেন “TIN Application “এই অপশনটির উপরে ক্লিক করে। আপনি আপনার ভোটার আইডি থেকে প্রয়োজনে সকল তথ্য দিয়ে দিবেন। ব্যাস আপনার আবেদন হয়ে গেলে। মেনু অপশনে আরেকটি অপশন রয়েছে “view tin certificate”এই অপশনটির উপরে জাস্ট ক্লিক করে দিবেন। তাহলে আপনার টিন নাম্বার সহ সার্টিফিকেটটি আপনার সামনে চলে আসবে।

মোবাইল দিয়ে টিন সার্টিফিকেট তৈরি

 

এরপরে আপনি নিচে থেকে। সার্টিফিকেটটিকে প্রিন্ট করতে পারবেন-সেভ করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি চাইলে ডিরেক্টলি মেইল করতে পারবেন।আপনি আপনার পছন্দের মেথডটিকে বাছাই করে আপনার টিন সার্টিফিকেট সংগ্রহ করে নিবেন।

আশা করছি আপনারা এই নিয়ম অনুসরণ করলে ১০০% আপনাদের টিন সার্টিফিকেটটি কম্পিউটার অথবা মোবাইল ডিভাইস থেকে এভাবে আপনারা তৈরি করতে পারবেন।

মোবাইল দিয়ে টিন সার্টিফিকেট তৈরি

 

এছাড়াও এই পদ্ধতিতে যদি কোথাও কোন কিছু বুঝতে আপনাদের অসুবিধা হয়। তাহলে অবশ্য পোস্ট কমেন্টসে জানিয়ে দিবেন।পরবর্তীতে আমি আপনাদেরকে সরাসরি মোবাইল অথবা কম্পিউটার স্ক্রিন শেয়ার করে কাজটি করে
দিব ইনশাল্লাহ।

টিন সার্টিফিকেট সম্পর্কিত আরো প্রশ্ন উত্তর

টিন সার্টিফিকেট করতে কত টাকা লাগে?

এই প্রশ্নটি অনেকে করে থাকে এই প্রশ্নের উত্তর হচ্ছে টিন সার্টিফিকেট করতে আপনার কোন ধরনের কোন লিগ্যাল ফি প্রয়োজন হয় না।অর্থাৎ টিন সার্টিফিকেট করার জন্য এক টাকাও প্রয়োজন নেই। ফ্রিতে উপরে দেখার নিয়ম অনুসরণ করে আপনি টিন সার্টিফিকেট তৈরি করতে পারবেন।

টিন সার্টিফিকেট বা টিন থাকলেই ট্যাক্স দিতে হবে কি?

না আপনাকে টিন সার্টিফিকেট থাকলেই ট্যাক্স দিতে হবে না। আপনি যদি করের আওতায় আসেন তাহলে শুধুমাত্র আপনাকে আয়কর জমা দিতে হবে।

টিন সার্টিফিকেট হারিয়ে গেলে বা নষ্ট হয়ে গেলে করণীয় কি?

টিন সার্টিফিকেট হারিয়ে গেলে বা নষ্ট হয়ে গেলেও আপনি ওয়েবসাইট থেকে অর্থাৎ আয়কর ওয়েবসাইট থেকে আবার সংগ্রহ করতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে আপনাকে কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য দিতে হবে।

শেষ কথা – আশা করছি উপরে নিয়ম অনুসরণ করলে আপনি মোবাইল ফোন অথবা কম্পিউটার দিয়েই আপনার অথবা আপনার পরিবারে টিন সার্টিফিকেট আপনি তৈরি করতে পারবেন। এছাড়াও যদি আপনার কোন সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই পোস্ট কমেন্টে জানাবেন।

আপনার জন্য আরো 

  • ইউটিউবে – ব্লগিং,ইউটিউবিং,ফেসবুকিং থেকে ইনকাম সম্পর্কিত ভিডিও পেতে–এখানে ভিজিট করুন
  • ফেসবুকে- ব্লগিং, ইউটিউবিং, ফেসবুকিং থেকে ইনকাম সম্পর্কিত সকল ভিডিও পেতে –এখানে ভিজিট করুন

Leave a Comment